Wellcome to National Portal
বাংলাদেশ ভূতাত্ত্বিক জরিপ অধিদপ্তর জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৪ জানুয়ারি ২০২২

ভূতাত্ত্বিক মানচিত্রায়ন ও কোয়াটারনারী ভূতত্ত্ব

শাখাঃ ভূতাত্ত্বিক মানচিত্রায়ন কোয়াটারনারী ভূতত্ত্ব

(Branch: Geological Mapping and Quaternary Geology)

 

শাখা প্রধানঃ জনাব নাসিমা বেগম

                পরিচালক (ভূতত্ত্ব)

ফোন (অফিস): ৯৩৪৪৬৮৯

মোবাইল: ০১৫৫২৩১৪৪১৬

ই-মেইল: nasimagsb@yahoo.com

                                                               

বাংলাদেশের শতকরা ৮০ ভাগ এলাকা কোয়াটারনারী যুগের পলল দ্বারা গঠিত। অবশিষ্ট এলাকা টারশিয়ারী যুগের শিলায় গঠিত পাহাড়ী অঞ্চল। সার্বিক বিবেচনায় দেশের বিভিন্ন উন্নয়নে ভূতাত্ত্বিক মানচিত্রের গুরুত্ব অপরিসীম। এ দৃষ্টিকোণ থেকে উক্ত শাখার মাধ্যমে মূলতঃ ১t৫০,০০০ স্কেলে উপজেলা ভিত্তিক মানচিত্রায়ন করা হয়ে থাকে। এছাড়াও বিশেষ ক্ষেত্রে ১t২৫০,০০০ স্কেলেও ভূতাত্ত্বিক মানচিত্র প্রস্তুত করা হয়। মানচিত্রায়ন কাজের পাশাপাশি কোয়াটারনারী যুগের ভূতাত্ত্বিক ইতিহাস ও জলবায়ুর তথ্যাদি গবেষণার মাধ্যমে উম্মোচন করা, বিভিন্ন দূর্যোগ যথা - বন্যা, নদী ভাঙ্গন, জলোচ্ছ্বাস, নদীর গতিপথ পরিবর্তন ইত্যাদি বিষয়ের উপর তথ্য সংগ্রহ ও কারণ সনাক্ত করা হয়।

লোকবলঃ       

  1. ড. মোঃ আহসান হাবিব, উপ-পরিচালক (ভূতত্ত্ব)।
  2. জনাব মোঃ নুরুজ্জামান সবুজ, উপ-পরিচালক (ভূতত্ত্ব)।
  3. জনাব অনিমেষ তালুকদার, উপ-পরিচালক (ভূতত্ত্ব)।
  4. জনাব মোঃ হোসেন খসরু, উপ-পরিচালক (ভূতত্ত্ব)।
  5. জনাব মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, সহকারী পরিচালক (ভূতত্ত্ব)।
  6. জনাব কে এম ইমাম হোসেন, সহকারী পরিচালক (ভূতত্ত্ব)।
  7. জনাব মোঃ মহি উদ্দিন, সহকারী পরিচালক (ভূতত্ত্ব)।
  8. জনাব মোঃ হোসাইন আল ইমরান, সহকারী পরিচালক (ভূতত্ত্ব)।

 

দায়িত্ব ও কার্যাবলীঃ

  • মানচিত্রায়নের স্বার্থে বহিরঙ্গনে বিশদ জরিপ পরিচালনা এবং প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ;
  • কোয়াটারনারী যুগে সংঘটিত জলবায়ুর পরিবর্তনের উপর গবেষণা কাজ পরিচালনা;
  • দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ডে চাহিদা মোতাবেক ভূতাত্ত্বিক মানচিত্র সংক্রান্ত তথ্যাদি সরবরাহ;
  • বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা গবেষণামূলক প্রতিষ্ঠানসমূহকে চাহিদা মোতাবেক ভূতাত্ত্বিক বিষয়ে সহায়তা প্রদান;
  • ভূতাত্ত্বিক মানচিত্রায়নে আধুনিক পদ্ধতির ব্যবহার;
  • প্রাপ্ত তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণের মাধ্যমে প্রতিবেদন প্রণয়ন।

Share with :

Facebook Facebook